আইসোটোপ কাকে বলে

আইসোটোপ কাকে বলে — কোন মৌলের ভিন্ন ধরনের পরমাণু যাদের পারমাণবিক বা প্রোটন সংখ্যা সমান কিন্তু ভরসংখ্যা ভিন্ন তাদেরকে ঐ মৌলের আইসোটোপ বলে। এছাড়াও আপনারা এভাবে সংজ্ঞায়িত করতে পারেন যেমনঃ যে সকল পরমাণুর প্রোটন সংখ্যা সমান কিন্তু বাকি সংখ্যা ভিন্ন ভিন্ন হয় তাদেরকে বলা হয় আইসোটোপ। প্রোটন সংখ্যা ১ হওয়ার কারণে এদের পরমাণু ক্রমাঙ্ক এবং ইলেক্ট্রনিক বিন্যাসও ১ হয়। তার ফলে এরা একই ভৌত ও রাসায়নিক ধর্ম দেখায়। তাই আদতে এরা একই মৌলের ভিন্ন ভরের পরমাণু।

মনে রাখার জন্যঃ আইসোটোপের প্রোটন সংখ্যা সমান থাকে এটা মনে রাখার সুবিধার জন্য প্রোটন ও আইসোটোপ দুটোতেই ‘প’ আছে, এই মিলটি মনে রাখা যেতে পারে।

আইসোটোপ কাকে বলে

১টি মৌলের প্রতিটি পরমাণুতে নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রোটন এবং ইলেকট্রন থাকে। কিন্তু ১টি মৌলের সকল পরমাণুর ভর এক রকম নাও হতে পারে। কেননা মৌলের পরমাণুতে বিভিন্ন সংখ্যার নিউট্রন থাকতে পারে। উদাহরণ হিসাবে বলা যায় যে, হাইড্রোজেনের সকল পরমাণুতে একটি করে প্রোটন এবং ইলেকট্রন থাকে। নিচের চিত্রগুলোকে ভালোভাবে লক্ষ্য করুনঃ

আইসোটোপ কাকে বলে

আইসোটোপ বলতে কী বোঝায়

১ নং চিত্রঃ হাইড্রোজেনের বেশিরভাগ পরমাণুতে কোনো নিউট্রন নেই, তাই এদের ভরসংখ্যা ১

২ নং চিত্রঃ পরমাণুটির মতো হাইড্রোজেনের কিছু পরমাণুতে ১ নিউট্রন থাকে, তাই এদের ভরসংখ্যা ২

৩ নং চিত্রঃ পরমাণুটির মতো হাইড্রোজেনের কিছু পরমাণুতে ২ নিউট্রন থাকে, তাই এদের ভরসংখ্যা ৩

চিত্রের তিনটি পরমাণু হাইড্রোজেনের তিনটি আইসোটোপ। একইভাবে, কোন মৌলের ভিন্ন ধরনের পরমাণু যাদের পারমাণবিক বা প্রোটন সংখ্যা সমান কিন্তু ভরসংখ্যা ভিন্ন তাদেরকে ঐ মৌলের আইসোটোপ বলে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

নবীনতর পূর্বতন